Over 10 years we helping companies reach their financial and branding goals. Onum is a values-driven SEO agency dedicated.

LATEST NEWS
CONTACTS
F-Commerce

ফেইসবুক মার্কেটিং-পার্ট ৮

গত পর্বে আমরা জেনেছি বিভিন্ন ধরনের ট্রিক্স ব্যবহার করে কীভাবে আপনার Audience research করবেন।

আজকে আমরা জানব, একটি সম্পুর্ণ স্ট্রাটেজিকাল ভিত্তিক পেইড ক্যাম্পিং কীভাবে তৈরি করবেন। পাশাপাশি, ক্যাম্পিং শুরু করা আগে কী কী বিষয় কে বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত তা নিয়ে বিস্তারিত আলাপ হবে।

একটি পেইড ক্যাম্পিং এ মুলত ৫ টি বিষয় কে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে

১. প্রডাক্ট / সেবার প্রেজেন্টেশন* Adcopy Text, Graphic Content

২. কনজুমার/ কাস্টমার / টার্গেট audience * Audience research & analyses

৩.ক্যাম্পিং লোকেশন * City/ Division / Country

৪. ক্যাম্পিং বাজেট,গোল

৫. ক্যাম্পিং প্লেসমেন্ট

*প্রডাক্ট / সেবার প্রেজেন্টেশনের সবচেয়ে সেরা মাধ্যম হচ্ছে ডিজাইন কিংবা ভিডিওর মাধ্যমে তুলে ধরা। পাশাপাশি এখানে এডকপি টেক্সট ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ। কেননা, প্রতিটি মেসেজে কাস্টমারকে আরও এট্রাক করার জন্য উভয় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।

*ইতিমধ্যে আমরা গতপর্বে audience research & analyses এর সাহায্যে টার্গেট ভিত্তিক কাস্টমারদের ডাটা কালেকশন করেছি।

*ক্যাম্পিং এ লোকেশন একটি মারাত্মক স্ট্রাটেজি। কেননা, আপনাকে এমন সিটি/ দেশ টার্গেট করতে হবে যা আপনার audience activity / coverage এর মধ্যে পরে।

*প্রতিটি পেইড ক্যাম্পিং এ বাজেট সেট অবশ্যই করতে হবে।যদি আপনি ভালো ভাবে বাজেট ম্যানেজমেন্ট না করতে পারেন এটি আপনার বিজনেস এ মারাত্মক ক্ষতি তৈরি করবে।তাই অবশ্যই,বাজেট ফিক্সড রেখে সামনে এগিয়ে যেতে হবে।কেমন বাজেট থাকবে,কত সময় হবে ইত্যাদি

*গোল – অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে ফিক্সড করতে হবে।গোল সেট না থাকলে মনে করবেন ( এটি চলবে মাঝি বিহীন নোকার মতে কিংবা ব্রেক ছাড়া গাড়ির মতো)

ক্যাম্পিং প্লেসমেন্টের সাহায্যে আপনি বুঝতে পারবেন কোথায় কোথায় আপনাকে এড দেখাতে হবে।আপনার টার্গেট audience কোন প্লেসে এ বেশি একটিভ ইত্যাদি।

Author

Surmatechzone

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *