Over 10 years we helping companies reach their financial and branding goals. Onum is a values-driven SEO agency dedicated.

LATEST NEWS
CONTACTS
F-Commerce

ফেইসবুক মার্কেটিং-পার্ট ৭

গত পর্বে আমরা ই-মেইল মার্কেটিং চ্যানেল কে কীভাবে ফেসবুক ভিত্তিক মার্কেটিং এ ব্যবহার করা যায় তা নিয়ে বিস্তারিত আলাপে শেয়ার করা হয়েছে।

আজকে আমরা জানব, কীভাবে আপনার ফেসবুক ভিত্তিক ব্র্যান্ডের জন্য টার্গেট অডিয়েন্স তৈরি করবেন।এবং ইনফরমেশন গুলো কীভাবে কাজে লাগাবেন তা নিয়ে আলাপ হবে।

বিজনেস শুরু দিক থেকেই আপনাকে অবশ্যই Targets audience নিয়ে কাজ করতে হবে। এতে আপনার লক্ষ,প্লানিং এ ভালো প্রভাব বিস্তার করে।

প্রতিটি বিজনেস, Category, নিশের target audience সম্পুর্ণ আলাদা।

কীভাবে বুঝবেন audience কারা?(প্রথমে এই প্রশ্ন গুলো সমাধান করুন)

১. আপনার audience দের বয়স কত হতে পারে?

২.তাদের স্টেজ গুলো কি কি ( child,Young etc)

৩. তাদের আগ্রহ/ বেহাবিউর গুলো কি কি?

৪.নিশ অনুযায়ী কোন কোন প্রফেশন থেকে লোক আপনার পণ্য/ সেবা নিচ্ছে?

৫. তাদের বায়িং প্রসেস গুলো কি কি?

৬. আপনার পণ্য/ সেবা কিভাবে তাদের বেনিফিট দিচ্ছে?

৭. কেন তারা আপনার সেবা/ পন্য নিবে?

৮. কিভাবে তাদের ইম্প্রেশ করবেন?

বিশেষ করে, এখানে এনালাইসিস বলতে বোঝানো হয়েছে আপনি কোন ধরনের কাস্টমারকে টার্গেট করবেন।তাদের বিভিন্ন স্টেজ গুলো আইডেন্টিফাই করা যা আপনি ২ ভাবে করতে পারবেন।

১. কোন সেবা/ পণ্য আপনার আছে যা একই ভাবে অন্য কোন স্টাব্লিস প্রতিষ্ঠানে ও আছে এই ক্ষেত্রে তাদের case study অনুসরণ করে বের করতে পারেন।

২. এক্সপার্ট বিজনেস/ প্রডাক্ট ডেভেলপমেন্ট টিম ধারা আইডেন্টিফাই করতে পারেন।আর সোর্স হিসেবে বিভিন্ন স্টাটিস্টিক সাইট থেকেও কিছুটা বের করতে পারবেন।

এই ইনফরমেশন সামনে কোথায় ব্যবহার বেশি লাগবে?

বিশেষ করে যে কোন অরগানিক, পেইড ক্যাম্পিং বলেন কিংবা প্রডাক্ট ডেভেলপমেন্ট বলেন, কাস্টমার নিডস এনালাইসিস সহ প্রায় আপনার বিজনেসের ৯৮% যায়গায় এটির ব্যবহার প্রচুর আছে।

মনে রাখবেন,এটি ছাড়া আপনার বিজনেস স্ট্রাটেজি চলবে মাঝি বিহীন নোকার মতো।

Author

admin

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *